রাজশাহীর বাগমারায় গৃহবধুকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন,থানায় মামলা

সুমন শান্ত,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় এক সন্তানের জননী শ্যামলী বেগম (২৭)কে যৌতুকের জন্য স্বামী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। ওই ঘটনায় গৃহবধূ শ্যামলী বেগম নিজেই বাদী হয়ে স্বামীসহ তিন জন কে আসামি করে বাগমারা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার গনিপুর ইউনিয়নের রঘুপাড়া গ্রামে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ১০ বছর পূর্বে উপজেলার রঘুপাড়া গ্রামের সুলতান আলীর কন্যা শ্যামলী বেগমের সাথে একই গ্রামের মৃত- আব্দুল জব্বারের ছেলে মানিক সরকারের সাথে ইসলামী শরিয়া মোতাবেক বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিনপর থেকে অভিযুক্ত মরিজান বেগম ও তার প্ররোচনায় শ্যামলীর স্বামী মানিক সরকার গৃহবধূ শ্যামলী বেগমকে যৌতুকের জন্য নানা ভাবে নির্যাতন শুরু করে।২১ নভেম্বর যৌতুকের জন্য স্বামী মানিক সরকার আবারো গৃহবধূ শ্যামলী বেগমকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। গৃহবধূ শ্যামলী বেগম বাবার বাড়িতে আসে এবং চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়।

গত শনিবার (২৮ নভেম্বর) রাতে গৃহবধূ শ্যামলী বেগম বাদি হয়ে স্বামী মানিক সরকার, শ্বাশুড়ি মরিজান বেগমসহ তিন জনের নামে থানায় একটি যৌতুকের মামলা দায়ের করেন। গৃহবধূ শ্যামলী বেগমের অভিযোগ স্বামী মানিক সরকার উপরোক্ত আসামীদের প্ররোচনায় এক লক্ষ টাকা যৌতুক না দিলে তিনি আমাকে ছেড়ে দিবেন। তার গরীব বাবার পক্ষে এত টাকা দেয়া সম্ভব নয় বলে তিনি জানিয়েছেন।তবে স্বামী মানিক সরকার তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, গৃহবধু কে যৌতুকের জন্য নির্যাতন এর ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে,আসামিদের গ্রেফতার এর জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button